Home » Bengali Sad Sms » বাংলা প্রেম bengali love sms, poems, quotes, heart breaking, sad, cheat, status, girlfriend, boyfriend whatsapp, wallpaper

বাংলা প্রেম bengali love sms, poems, quotes, heart breaking, sad, cheat, status, girlfriend, boyfriend whatsapp, wallpaper

বাংলা প্রেম bengali love sms, poems, quotes, heart breaking, sad, cheat, status, girlfriend, boyfriend whatsapp, wallpaper

বাংলা প্রেম bengali love sms, poems, quotes, heart breaking, sad, cheat, status, girlfriend, boyfriend whatsapp, wallpaper

 

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রেম নেই তবু প্রেমের কান্না মরেনি
তুমি নেই তবু তোমাকে পাওয়ার বাসনার সোনা ঝরেনি
এই সর্পিল জীবনের পথে আলগোছে ছুঁয়ে যাওয়া
তুমি যেন কোন চৈত্র রাতের দূর সমুদ্র হাওয়া!

তুমি নেই তবু একটি বিপুল বিস্ময় আছে মনে-
হঠাৎ কখনো পাখি ডেকে যায় বনে,
হঠাৎ কখনো বাতার পাশে হেনার গন্ধ জাগে;
হঠাৎ কখনো দুঃস্বহ অনুরাগে
একটি ব্যকুল গান রেখে যাও সেখানে
আমার গানের শ্রান্ত পাখিরা নীড় খুঁজে ফেরে যেখানে।

কোনো কোনো দিন বৈশাখী মেঘ, দোলা দিয়ে যাও তুমি,
কেঁপে ওঠে ঘন অমাবশ্যায় নির্জন বনভূমি।
সাড়া দাও তুমি গহন অন্ধকারে,
চেনা পৃথিবীর দিগন্ত রেখা ঘুঁচে যায় বারেবারে।
জাগে শুধু সেই অন্ধকারের গহনে
কুঁড়ির গন্ধ অন্ধ আবেগে অনাদি কালের দহনে।

তোমার পাখার সুর জেগে ওঠে রূপালি নদীর তীরে
আমার পায়ের চিহ্ন তখন রাতের পাহাড় ঘিরে,
ছুঁয়ে যেতে চায় তোমার আকাশ আলগোছে ভালবেসে।
হঠাৎ কখনো পথ ঢেলে দাও তোমার কৃষ্ণ কেশে!
যারে পেতে চাই নিজের ছায়ায় ঢাকা সে
বৈশাখী মেঘ তবু রেখে যায় ঝড়ের ইশারা আকাশে।

 

যেদিন আমি হারিয়ে যাব,
বুঝবে সেদিন বুঝবে,
অস্তপারের সন্ধ্যাতারায়
আমার খবর পুছবে –
বুঝবে সেদিন বুঝবে!
ছবি আমার বুকে বেঁধে
পাগল হয়ে কেঁদে কেঁদে
ফিরবে মরু কানন গিরি,
সাগর আকাশ বাতাস চিরি’
যেদিন আমায় খুঁজবে –
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

স্বপন ভেঙে নিশুত্ রাতে
জাগবে হঠাৎ চমকে,
কাহার যেন চেনা-ছোওয়ায়
উঠবে ও-বুক ছমকে, –
জাগবে হঠাৎ চমকে!
ভাববে বুঝি আমিই এসে
ব’সনু বুকের কোলটি ঘেঁষে,
ধরতে গিয়ে দেখবে যখন
শূন্য শয্যা! মিথ্যা স্বপন!
বেদনাতে চোখ বুজবে –
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

গাইতে ব’সে কন্ঠ ছিড়ে
আসবে যখন কান্না,
ব’লবে সবাই – “সেই যে পথিক,
তার শেখানো গান না?”
আসবে ভেঙে কান্না!
প’ড়বে মনে আমার সোহাগ,
কন্ঠে তোমার কাঁদবে বেহাগ!
প’ড়বে মনে অনেক ফাঁকি
অশ্রু-হারা কঠিন আঁখি
ঘন ঘন মুছবে –
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

আবার যেদিন শিউলি ফুটে
ভ’রবে তোমার অঙ্গন,
তুলতে সে-ফুল গাঁথতে মালা
কাঁপবে তোমার কঙ্কণ –
কাঁদবে কুটীর-অঙ্গন!
শিউলি ঢাকা মোর সমাধি
প’ড়বে মনে, উঠবে কাঁদি’!
বুকের মালা ক’রবে জ্বালা
চোখের জলে সেদিন বালা
মুখের হাসি ঘুচবে –
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

.তোমার খোলা হাওয়া
লাগিয়ে পালে….
টুকরো করে কাছি,
ডুবতে রাজি আছি,
আমি ডুবতে রাজি আছি॥

সকাল আমার গেল মিছে,
বিকেল যে যায়
তারি পিছে গো,
রেখো না আর,
বেঁধো না আর
কুলের কাছাকাছি॥

মাঝির লাগি আছি জাগি সকল
রাত্রিবেলা,
ঢেউগুলো যে আমায়
নিয়ে করে কেবল খেলা।
ঝড়কে আমি করব মিতে,
ডরব না তার ভ্রুকুটিতে
দাও ছেড়ে দাও, ওগো,
আমি তুফান পেলে বাঁচি॥

মাঝে মাঝে তব দেখা পাই, চিরদিন কেন পাই না?
কেন মেঘ আসে হৃদয়-আকাশে, তোমারে দেখিতে দেয় না?

ক্ষণিক আলোকে আঁখির পলকে তোমায় যবে পাই দেখিতে
হারাই-হারাই সদা হয় ভয়, হারাইয়া ফেলি চকিতে ॥

কী করিলে বলো পাইব তোমারে, রাখিব আঁখিতে আঁখিতে।
এত প্রেম আমি কোথা পাব নাথ, তোমারে হৃদয়ে রাখিতে?

আর কারো পানে চাহিব না আর, করিব হে আমি প্রাণপণ–
তুমি যদি বল এখনি করিব বিষয়বাসনা বিসর্জন ॥

যদি নির্বাসন দাও, আমি ওষ্ঠে অঙ্গুরি ছোঁয়াবো
আমি বিষপান করে মরে যাবো!
বিষন্ন আলোয় এই বাংলাদেশ
নদীর শিয়রে ঝুঁকে পড়া মেঘ
প্রান্তরে দিগন্ত নিনির্মেষ-
এ আমারই সাড়ে তিন হাত ভূমি
যদি নির্বাসন দাও, আমি ওষ্ঠে অঙ্গুরি ছোঁয়াবো
আমি বিষপান করে মরে যাবো।
ধানক্ষেতে চাপ চাপ রক্ত
এইখানে ঝরেছিল মানুষের ঘাম
এখনো স্নানের আগে কেউ কেউ করে থাকে নদীকে প্রণাম
এখনো নদীর বুকে
মোচার খোলায় ঘোরে
লুঠেরা, ফেরারী!
শহরে বন্দরে এত অগ্নি বৃষ্টি
বৃষ্টিতে চিক্কণ তবু এক একটি অপরূপ ভোর
বাজারে ক্রুরতা, গ্রামে রণহিংসা
বাতাবি লেবুর গাছে জোনাকির ঝিকমিক খেলা
বিশাল প্রাসাদে বসে কাপুরুষতার মেলা
বুলেট ও বিস্ফোরণ
শঠ তঞ্চকের এত ছদ্মবেশ
রাত্রির শিশিরে কাঁপে ঘাস ফুল-
এ আমারই সাড়ে তিন হাত ভূমি
যদি নির্বাসন দাও আমি ওষ্ঠে অঙ্গুরি ছোঁয়াবো
আমি বিষপান করে মরে যাবো।
কুয়াশার মধ্যে এক শিশু যায় ভোরের ইস্কুলে
নিথর দিঘির পাড়ে বসে আছে বক
আমি কি ভুলেছি সব
স্মৃতি, তুমি এত প্রতারক?
আমি কি দেখিনি কোনো মন্থর বিকেলে
শিমুল তুলোর ওড়াউড়ি?
মোষের ঘাড়ের মত পরিশ্রমী মানুষের পাশে
শিউলি ফুলের মত বালিকার হাসি
নিইনি কি খেজুর রসের ঘ্রাণ
শুনিনি কি দুপুরে চিলের
তীক্ষ স্বর?
বিষন্ন আলোয় এই বাংলাদেশ…
এ আমারই সাড়ে তিন হাত ভূমি
যদি নির্বাসন দাও আমি ওষ্ঠে অঙ্গুরি ছোঁয়াবো
আমি বিষপান করে মরে যাবো।

বরষার প্রথম দিনে
ঘন কালো মেঘ দেখে,
আনন্দে যদি কাঁপে তোমার হৃদয়,
সেদিন তাহার সাথে কর পরিচয়,
কাছে কাছে থেকেও যে কভু কাছে নয়।।

জীবনের সব ভুল,
যদি ফুল হয়ে যায়।।

যদি কোন দিন আসে জোছনার আঁচলে ঢাকা,
মধুর সময়।

তখন কাছে এসো,
তাহাকে ভালোবেসো,
সেদিন তাহার সাথে কর পরিচয়,
কাছে কাছে থেকেও যে কভু কাছে নয়।

জীবনের সব কালো,
যদি আলো হয়ে যায়।

দূর হয়ে যায় যদি ছায়াদের আঁধার সময়।

তখন কাছে এসো,
তাহাকে ভালোবেসো,
ছায়াময়ী কারো সাথে করো পরিচয়।
কাছে কাছে থেকেও যে কভু কাছে নয়।

আজি ঝরো ঝরো মুখর বাদরদিনে
জানি নে, জানি নে কিছুতে
কেন যে মন লাগে না ।

এই চঞ্চল সজল পবন-বেগে
উদ্‌ভ্রান্ত মেঘে মন চায়
মন চায় ওই বলাকার পথখানি নিতে চিনে ।

মেঘমল্লার সারা দিনমান…
বাজে ঝরনার গান।

মন হারাবার আজি বেলা,
পথ ভুলিবার খেলা– মন চায়
মন চায় হৃদয় জড়াতে কার চিরঋণে॥

হাত বাড়িয়ে ছুঁই না তোকে
মন বাড়িয়ে ছুঁই,
দুইকে আমি এক করি না
এক কে করি দুই।

হেমের মাঝে শুই না যবে,
প্রেমের মাঝে শুই
তুই কেমন কর যাবি?
পা বাড়ালেই পায়ের ছায়া
আমাকেই তুই পাবি।

তবুও তুই বলিস যদি যাই,
দেখবি তোর সমুখে পথ নাই।

তখন আমি একটু ছোঁব
হাত বাড়িয়ে জড়াব তোর
বিদায় দুটি পায়ে,
তুই উঠবি আমার নায়ে,
আমার বৈতরণী নায়ে।

নায়ের মাঝে বসবো বটে,
না-এর মাঝে শোবো,
হাত দিয়েতো ছোঁব না মুখ
দুঃখ দিয়ে ছোঁব।

আমি শুনেছি সেদিন তুমি সাগরের ঢেউয়ে চেপে
নীলজল দিগন্ত ছুঁয়ে এসেছো
আমি শুনেছি সেদিন তুমি নোনা বালি তীর ধরে
বহু দূর বহু দূর হেটে এসেছ

আমি কখনো যাই নি জলে কখনো ভাসিনি নীলে
কখনো রাখিনি চোখ ডানা মেলা গাংচিলে
আবার যেদিন তুমি সমুদ্র স্নান -এ যাবে
আমাকে ও সাথে নিও নেবে তো আমায় বল
নেবে তো আমায়

আমি শুনেছি সেদিন নাকি তুমি তুমি তুমি মিলে
তোমরা সদলবলে সভা করে ছিলে
আর সেদিন তোমরা নাকি অনেক জটিল ধাঁধাঁ
না বলা অনেক কথা কথা তুলেছিলে
কেন শুধু ছুটে ছুটে চলা একা একা কথা বলা
নিজের জন্যে বাঁচা নিজেকে নিয়ে
যদি ভালোবাসা না-ই থাকে শুধু একা একা লাগে
কোথায় শান্তি পাব কোথায় গিয়ে বল কোথায় গিয়ে

আমি শুনেছি তোমরা নাকি এখনো স্বপ্ন দেখো
এখনো গল্প লেখ গান গাও প্রাণ ভরে
মানুষের বাঁচা মরা এখনো ভাবিয়ে তোলে
তোমাদের ভালবাসা এখনো গোলাপে ফোটে
আস্থা হারানো এই মন নিয়ে আমি আজ
তোমাদের কাছে এসে দু হাত পেতেছি
আমি দুচোখের গহরে শূন্যতা দেখি শুধু
রাত ঘুমে আমি কোনো স্বপ্ন দেখি না
তাই স্বপ্ন দেখব বলে আমি দুচোখ পেতেছি
তাই তোমাদের কাছে এসে আমি দু হাত পেতেছি
তাই স্বপ্ন দেখব বলে আমি দুচোখ পেতেছি ..!

এত হাসি কোথায় পেলে
এত কথার খলখলানি
কে দিয়েছে মুখটি ভরে
কোন বা গাঙের কলকলানি।

কে দিয়েছে রঙিন ঠোঁটে
কলমী ফুলের গুলগুলানি।
কে দিয়েছে চলন বলন
কোন সে লতার দোল দুলানী।

কাদের ঘরে রঙিন পুতুল
আদরে যে টইটুবানি।
কে এনেছে বরণ ডালায়
পাটের বনের বউটুবানী।

কাদের পাড়ার ঝামুর ঝুমুর
কাদের আদর গড়গড়ানি
কাদের দেশের কোন সে চাঁদের
জোছনা ফিনিক ফুল ছড়ানি।

তোমায় আদর করতে আমার
মন যে হলো উড়উড়ানি
উড়ে গেলাম সুরে পেলাম
ছড়ার গড়ার গড়গড়ানি।

যদি ভালবাসা পাই আবার শুধরে নেব
জীবনের ভুলগুলি
যদি ভালবাসা পাই ব্যাপক দীর্ঘপথে
তুলে নেব ঝোলাঝুলি
যদি ভালবাসা পাই শীতের রাতের শেষে
মখমল দিন পাব
যদি ভালবাসা পাই পাহাড় ডিঙ্গাবো
আর সমুদ্র সাঁতরাবো
যদি ভালবাসা পাই আমার আকাশ হবে
দ্রুত শরতের নীল
যদি ভালবাসা পাই জীবনে আমিও পাব
মধ্য অন্তমিল।

ইচ্ছে ছিলো তোমাকে সম্রাজ্ঞী করে সাম্রাজ্য
বাড়াবো
ইচ্ছে ছিলো তোমাকেই সুখের
পতাকা করে
শান্তির কপোত করে হৃদয়ে উড়াবো।

ইচ্ছে ছিলো সুনিপূণ মেকআপ-ম্যানের
মতো
সূর্যালোকে কেবল
সাজাবো তিমিরের সারাবেলা
পৌরুষের প্রেম
দিয়ে তোমাকে বাজাবো, আহা তুমুল
বাজাবো।

ইচ্ছে ছিলো নদীর বক্ষ
থেকে জলে জলে শব্দ তুলে
রাখবো তোমার লাজুক চঞ্চুতে,
জন্মাবধি আমার শীতল চোখ
তাপ নেবে তোমার দু’চোখে।

ইচ্ছে ছিল রাজা হবো
তোমাকে সাম্রাজ্ঞী করে সাম্রাজ্য
বাড়াবো।

আজ দেখি রাজ্য আছে
রাজা আছে
ইচ্ছে আছে,
শুধু তুমি অন্য ঘরে।

চলে যাওয়া মানে প্রস্থান নয়- বিচ্ছেদ নয়
চলে যাওয়া মানে নয় বন্ধন ছিন্ন-করা আর্দ্র রজনী
চলে গেলে আমারও অধিক কিছু থেকে যাবে
আমার না-থাকা জুড়ে।

জানি চরম সত্যের কাছে নত হতে হয় সবাইকে-
জীবন সুন্দর
আকাশ-বাতাস পাহাড়-সমুদ্র
সবুজ বনানী ঘেরা প্রকৃতি সুন্দর
আর সবচেয়ে সুন্দর এই বেঁচে থাকা
তবুও কি আজীবন বেঁচে থাকা যায়!
বিদায়ের সেহনাই বাজে
নিয়ে যাবার পালকি এসে দাঁড়ায় দুয়ারে
সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে
এই যে বেঁচে ছিলাম
দীর্ঘশ্বাস নিয়ে যেতে হয়
সবাইকে
অজানা গন্তব্যে
হঠাৎ ডেকে ওঠে নাম না জানা পাখি
অজান্তেই চমকে ওঠি
জীবন, ফুরালো নাকি!
এমনি করে সবাই যাবে, যেতে হবে…

আমার সারাটা দিন, মেঘলা আকাশ,
বৃষ্টি – তোমাকে দিলাম
শুধু শ্রাবণ সন্ধ্যাটুকু তোমার কাছে চেয়ে নিলাম।

হৃদয়ের জানালায় চোখ মেলে রাখি
বাতাসের বাঁশিতে কান পেতে থাকি
তাকেই কাছে ডেকে, মনের আঙিনা থেকে
বৃষ্টি তোমাকে তবু ফিরিয়ে দিলাম।

তোমার হাতেই হোক রাত্রি রচনা
এ আমার স্বপ্ন সুখের ভাবনা
চেয়েছি পেতে যাকে, চাইনা হারাতে তাকে
বৃষ্টি তোমাকে তাই ফিরে চাইলাম।

Nodir kosto hoy pani shukiye gele,

gacher kosto hoy, pata jhore gele,

rater kosto hoy, chand dube gele,

ar manusher kosto hoy aponjon vul bujhle.

Mone rakhbo tomake chirodin,

tumi jekhanei thako, joto din.

tomake niye ghurbo sritir ghor,

jodio tumi hoye gecho amar por,

tobuo miss korbo tomay jibon vor.

Sukh boro nisthur amay bujhe na,
kache ese uki dey dhora dey na,
jibone sukh name nodite paini kono kul,
aj mone hoy sukher ashay beche thakatai boro vul.
—————————————————-
Janina keno amar emon hoy ?
keno tomay niye eto sopno dekhi !
ami jani ami tomay koto valobashi .
jani na keno eto tomay miss kori !
——————————————–
Akash tumi meghla keno,
boklo tomay k ?
roder sathe aj ki tomar
jhogra hoyeche ?
ta-na hole sokal theke
kadcho keno eto ?
tomaro ki monta kharaf
amari moto ?

 

Kauke valobasi bujhanor sobcheye boro onuvuti holo kanna kora,
karon jar jonno kanna ase na,
tar proti kokhono valobasa thake na,
jhor kore hasa jabe
kintu kanna kora jabe na.
————————————-
Nispap hoye esechilam papi hoye jabo,
vabini ei prithibite eto kosto pabo .
bondhu bolo bandhob bolo keu apon noy.
kkhoniker ei prithibite keu apon noy.
———————————————
Oviman beshi somoy bachiye rakhte nei, bohu bochor por oviman vangle, giye dekhbe jar sathe oviman se ar nei. hoyto dure kothao hariye geche. ar tokhon dukkhito bolar sujog tukuo hariye jabe.

>> NEXT (Bengali Love pics)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*